1. admin@ajkallondon.com : Ajkal London : Ajkal London
  2. ajkallondon@gmail.com : Dev : Dev
চ্যালেঞ্জিং পেশায় নারীর ঈর্ষণীয় সাফল্য - Ajkal London
রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ০২:৪৪ অপরাহ্ন

চ্যালেঞ্জিং পেশায় নারীর ঈর্ষণীয় সাফল্য

রিপোর্টার নাম
  • প্রকাশিত : রবিবার, ১ আগস্ট, ২০২১
  • ১৬৩ বার ভিউ

তৌহিদুজ্জামান তন্ময়.ঢাকা : বাংলাদেশ পুলিশে নারীর পদযাত্রা ১৯৭৪ সালে। সে বছরই প্রথম বারের মতো ১৪ নারীকে কনস্টেবল পদে নিয়োগ দেয় পুলিশ। সীমিত পরিসরের সেই পথচলা পরে প্রেরণা যুগিয়েছে হাজার হাজার উত্তর সূরীকে। পুলিশের সব ইউনিটে এখন কাজ করছেন ১৫ হাজারেরও বেশি নারী সদস্য। চ্যালেঞ্জ নিয়ে সমানতালে তারা এগিয়ে যাচ্ছেন পুরুষ সহকর্মীদের সঙ্গে। থানা থেকে ট্রাফিক, কন্ট্রোল রুম থেকে মাঠের অভিযান সবখানেই এখন নারী পুলিশ সদস্যদের সরব উপস্থিতি। তবে ১৯৭৪ সালে নিয়োগ পাওয়ার পর প্রায় দুই বছর পর্যন্ত পুলিশের নারী সদস্যদের জন্য কোনো নির্ধারিত ইউনিফর্ম ছিল না। ১৯৭৬ সালে বাহিনীটি তাদের নারী সদস্যদের জন্য ইউনিফর্মের ব্যবস্থা করে।
পুলিশ সদরদফতর সূত্রে জানা গেছে, আইন-শৃঙ্খলায় নিয়োজিত এ বাহিনীতে ক্রমেই বাড়ছে নারীদের অংশগ্রহণ। যোগ্যতা ও সুযোগ অনুযায়ী বড় ও গুরুত্বপূর্ণ পদেও দায়িত্ব পাচ্ছেন তারা। শুধু তা-ই নয়, দেশের গণ্ডি ছাড়িয়ে জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনেও উজ্জ্বল ভূমিকা রাখছেন বাংলাদেশ পুলিশের নারী সদস্যরা।চ্যালেঞ্জিং এ পেশায় পুরুষ সদস্যদের সঙ্গে তারা সমানতালে এগিয়ে যাচ্ছেন। পাচ্ছেন ঈর্ষণীয় সাফল্য। মিলছে স্বীকৃতিও। আর কর্মপরিবেশ বিবেচনায় পুলিশ বাহিনীকে ‘নারীবান্ধব’ হিসেবে আখ্যা দিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল এবং মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. বেনজীর আহমেদ।
পুলিশের অনলাইন সেবায় নারী সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা বলছেন, সেবাদানের মনোভাবে পুরুষের তুলনায় নারীরা কিছুটা হলেও এগিয়ে। বিষয়টি মাথায় রেখেই জাতীয় জরুরি সহায়তা নম্বর ‘৯৯৯’-এর কল সেন্টারে রাখা হয়েছে ৮০ ভাগ নারী কর্মী। সারাদেশের থানাগুলোতে নারী ও শিশু ডেস্ক চালু করা হয়েছে। এগুলো পরিচালনা করছেন পুলিশের প্রায় চার হাজার নারী সদস্য। তবে এই সেবা খাতে আরও জন বল প্রয়োজন বলে জানান সংশ্লিষ্টরা।
সারা বিশ্বে মহামারির মতো ছড়িয়ে পড়া সাইবার অপরাধ ঘটছে বাংলাদেশেও। বিশ্বব্যাপী সাইবার অপরাধীদের অন্যতম প্রধান টার্গেট নারী। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক, টুইটার, ইউটিউবসহ বিভিন্ন মাধ্যমে তারা হয়রানির শিকার। সাইবার অপরাধ প্রতিরোধে নিরন্তর প্রয়াস চালিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ পুলিশ। সাইবার অপরাধ নিয়ন্ত্রণ এবং অনলাইনে নারীদের নিরাপদ রাখতে দেশের প্রচলিত আইন প্রয়োগে সচেষ্ট এই বাহিনী।
অনলাইনে সংঘটিত নারীর প্রতি হয়রানিমূলক অপরাধের অভিযোগ গ্রহণ, প্রয়োজনীয় পরামর্শ ও আইনি সহায়তা দিতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও কাজ করে যাচ্ছে পুলিশ। এ লক্ষ্যে গত বছরের ১৬ নভেম্বর ‘পুলিশ সাইবার সাপোর্ট ফর উইমেন’ ফেইসবুক পেজ খোলা হয়। এ ইউনিটে শুধু নারী পুলিশ কর্মকর্তারা নিয়োজিত রয়েছেন, যেন সাইবার অপরাধের শিকার নারী নিঃসঙ্কোচে তাদের সমস্যার কথা জানাতে পারেন।
জাতীয় জরুরি সেবা-৯৯৯ এর সঙ্গে এই পেজের সংযোগ স্থাপন করা রয়েছে। উদ্দেশ্য ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো অথবা ভুক্তভোগী নারীকে সাপোর্ট সেন্টারে নিয়ে আসা। শিশুরা যেন এ ধরনের হয়রানির শিকার না হয়, সেজন্যও পুলিশ কাজ করে। এই ইউনিটে অভিযোগ জানাতে হলে ভুক্তভোগী দেশের যে কোনো প্রান্ত থেকে cybersupport.women@police.gov.bd ঠিকানায় ইমেইল করে বা ০১৩২০০০০৮৮৮ হটলাইন নম্বরে অথবা ৯৯৯-এ ফোন করে অভিযোগ জানাতে পারবেন।
‘Police Cyber Support for Women PCSW www.facebook.com/PCSW.PHQ’ নামে ফেসবুক পেজে মেসেজ দিয়েও অভিযোগ জানানো যাবে।

Google News

নিউজ শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর