1. admin@ajkallondon.com : Ajkal London : Ajkal London
  2. ajkallondon@gmail.com : Dev : Dev
কারী লাইফ অ্যাওয়ার্ডস ও গালা ডিনার অনুষ্ঠিত - Ajkal London
রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ০২:৩৭ অপরাহ্ন

কারী লাইফ অ্যাওয়ার্ডস ও গালা ডিনার অনুষ্ঠিত

রিপোর্টার নাম
  • প্রকাশিত : মঙ্গলবার, ১১ অক্টোবর, ২০২২
  • ৮৯ বার ভিউ

সিটি  প্রতিবেদক: নান্দনিক আয়োজনে যুক্তরাজ্যের বাছাই করা সেরা শেফ ও রেস্টুরেটার্সদের হাতে অ্যাওয়ার্ডস তুলে দিয়েছে কারী লাইফ মিডিয়া গ্রুপ। রোববার (৯ অক্টোবর) সেন্ট্রাল লন্ডনের অভিজাত গ্রোভনর হাউজ হোটেলের সুপরিসর ‘দ্য গ্রেট রুম’ এ এবারের কারী লাইফ অ্যাওয়ার্ডস ও গালা ডিনার অনুষ্ঠিত হয়।
এবার পাঁচটি বিভাগে ৪০টি অ্যাওয়ার্ডস প্রদান করা হয়। এরমধ্যে রয়েছে, কারি লাইফ এডিটর চয়েস অ্যাওয়ার্ডস, কারি লাইফ বেষ্ট রেষ্টুরেন্ট অ্যাওয়ার্ডস, বেষ্ট শেফ অ্যাওয়ার্ডস, বেষ্ট টেকওয়ে অ্যাওয়ার্ডস এবং কারী লাইফ লেজেন্ড অ্যাওয়ার্ডস।এর পাশাপাশি তিনটি বিশেষ সম্মননা স্বারক প্রদান করা হয়। যার মধ্যে ‘বেস্ট লাক্সারি বিজনেস হোটেল’ অ্যাওয়ার্ডস পেয়েছে ঢাকার হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টাল। হোটেলের পক্ষে অ্যাওয়ার্ডস গ্রহণ করেন জেনারেল ম্যানেজার আশওয়ানি নায়ার ও মার্কেটিং ডিরেক্টর শহিদুস সাদেক।

এ ছাড়া রেস্টুরেন্ট সেক্টরে অসাম্য অবদানের জন্য লাইফটাইম এচিভমেন্ট অ্যাওয়ার্ডসে ভূষিত হয়েছেন স্কটল্যান্ডের রাজধানী এডিনবরার শেজান ইন্ডিয়ান রেস্টুরেন্টের আব্দুল গণি (সিনিয়র)। আশিতিপর এই ব্যবসায়ী প্রায় পঞ্চাশ বছর যাবত রেস্টুরেন্ট খাতে যুক্ত রয়েছেন।
এছাড়া বিশেষ কারি লেজেন্ড অ্যাওয়ার্ডস দেয়া হয় ষ্টোক অন ট্রেন্ট- এর কিসমত রেষ্টুরেন্টের প্রতিষ্ঠাতা প্রয়াত আলাউদ্দিন আহমদকে। তিনি ১৯৬২ সালে স্টাফোর্ডশায়ারের সর্বপ্রথম ইন্ডিয়ান খাবারের রেষ্টুরেন্ট খোলেন। ব্রিটিশ বাংলাদেশি এই ব্যবসায়ীর একমাত্র ছেলে সালাউদ্দিন ৬০ বছরের এই পুরানো রেষ্টুরেন্ট এখনো চালিয়ে যাচ্ছেন।

এটি ছিলো কারী লাইফ অ্যাওয়ার্ডস ও গালা ডিনারের ১৩ তম আয়োজন। কারী ইন্ড্রাস্ট্রির অর্জন, সম্ভাবনা ও সংকট নিয়ে নিয়মিত প্রকাশনা ও বিভিন্ন দেশে ‘ব্রিটিশ কারী ফেস্টিভ্যাল’ আয়োজনের মাধ্যমে কারী লাইফ ইতিমধ্যে ব্রিটিশ কারী ইন্ডাস্ট্রির বিশ্বস্ত ও নির্ভরযোগ্য মূখপত্র হিসেবে নিজেদের প্রতিষ্ঠিত করেছে। তারই ধারাবাহিকতায় যুক্তরাজ্যের কালিনারি ক্যালেন্ডারের বার্ষিক অন্যতম সেরা আয়োজন হিসেবে স্থান করে নিয়েছে ‘কারী লাইফ অ্যাওয়ার্ডস’।
যুক্তরাজ্যে কারী ইন্ডাস্ট্রির প্রেসটিজিয়াজ এই অ্যাওয়ার্ডস অনুষ্ঠানে এবারও রেস্টুরেটার্স ও খাদ্যরসিকদের প্রাণজ উপস্থিতি ছিলো দেখার মত। কারী ইন্ডাষ্ট্রির শীর্ষস্থানীয় নেতৃবৃন্দের পাশাপাশি উপস্থিত ছিলেন ব্রিটিশ মূলধারার রাজনীতিক, সাংবাদিক ও সাংস্কৃতিক অঙ্গণের স্বনামধন্য ব্যক্তিবর্গ। বিকাল সাড়ে চারটা থেকেই শুরু হয় অতিধিদের আগমণ। সন্ধ্যা ৬টা হতেই অতিথিদের প্রাণজ উপস্থিতিতে ভরে উঠে অনুষ্ঠানস্থল। রকমারী ও সুস্বাধু ক্যানোপির সাথে চলে অতিথিদের ছবি তোলা ও আড্ডা। ৭টায় শুরু হয় মূল আয়োজন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন দেশটির স্থানীয় সরকার বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী পল স্কালি এমপি, কনফেডারেশন অব ব্রিটিশ ইন্ডাষ্ট্রিজ (সিবিআই) এর সদ্য সাবেক চেয়ারম্যান লর্ড করণ বিলিমোরিয়া ছিলেন বিশেষ অতিথি। এছাড়া কারি লাইফ- এর জাঁকজমকপূর্ণ এই অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন প্রথম কোনো বাঙালি হিসেবে ব্রিটিশ পার্লামেন্টে নাম লেখানো লেবার দলীয় এমপি রুশনারা আলী, অনলাইন অর্ডারিং কোম্পানী জাষ্ট ইট ইউকে’র একাউন্ট ম্যানেজমেন্ট ডিরেক্টর মার্ক ফিঞ্চ। ছিলেন লেস্টার সিটির চ্যাম্পিয়ান লীগ টিমের সদস্য বাংলাদেশি বংশোদ্ভুত উদীয়মান ব্রিটিশ ফুটবলার হামজা চৌধুরী।

স্কাই নিউজের বিশিষ্ট ব্রডকাস্টার, সাংবাদিক ও লেখক এডাম বোল্টনের উপস্থাপনায় এবারের আয়োজনে অতিথিরা বিজয়ীদের হাতে অ্যাওয়ার্ডস তুলে দেন।কারী লাইফ ম্যাগাজিনের এবারের আয়োজনও ছিলো নতুনত্বে ভরা। নজরকাড়া সাংস্কৃতিক আয়োজনের পাশাপাশি এবার বিশেষ মযা‍র্দায় বিজয়ীদের মঞ্চে নেয়া হয়। সুবিশাল হলরুমের দুই দিকে সারি সারি অতিথিদের বসার টেবিল। মাঝখানে লালগালিচার পথ। সেই পথেই বিজয়ীরা একে একে মঞ্চে গেলেন অ্যাওয়ার্ডস গ্রহণ করতে। আবার পুরো অনুষ্ঠানটি এবার বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সরাসরি সম্প্রচার করা হয়।
অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন কারি লাইফ এর সম্পাদক সৈয়দ বেলাল আহমদ। তিনি বলেন, ব্রেক্সিট, করোনা মহামারী, মূল্যস্ফীতি এবং কস্ট অব লিভিংয়ের পর এখন চলছে এনার্জি ক্রাইসিস। একের পর এক সংকটের কারণে কারী ইন্ড্রাস্ট্রি এর ইতিহাসের সবচেয়ে ভয়াবহ চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করছে।
লর্ড করণ বিলিমোরিয়া বলেন, কঠিন সময়ে জনগণ ও ব্যবসাকে সহায়তা করার জন্য সরকার বেশ উল্লেখযোগ্য কিছু সহায়তা করেছে। কিন্তু সংকট এখনও বিদায় নেয়নি। তাই কারী ইন্ডাষ্ট্রির মত বিশাল এই খাতকে টিকেয়ে রাখতে সরকারের আরও সহায়তা অব্যাহত রাখতে হবে। তিনি বলেন, বর্তমানে কারী ইন্ডাস্ট্রি ব্রিটেনের অর্থনীতিতে বছরে প্রায় বিলিয়ন বিলিয়ন পাউন্ডের অবদান রাখে।
মিনিষ্টার ফর লকাল গ্রভর্ণমেন্ট পল স্কালি এমপি বলেন, আমরা হসিপটালিটি সেক্টরের পাশে আছি, থাকবো এবং এটি যাতে আরও উন্নতির দিকে যায় সে লক্ষ্যে কাজ করবো। এ প্রসঙ্গে কভিড সময়ে সরকারের চারশো বিলিয়ন পাউন্ড প্রণোদনার কথা উল্লেখ করেন। অনুষ্ঠানে এমপি রুশনারা আলীও বক্তব্য রাখেন।
জাষ্ট ইট ইউকে’র একাউন্ট ম্যানেজমেন্ট ডিরেক্টর মার্ক ফিঞ্চ বলেন, অনলাইনে খাবার অর্ডারের তালিকায় শুরু থেকে এখনও শীর্ষে রয়েছে কারী।
সবশেষে অতিথিদের ধন্যবাদ জানিয়ে বক্তব্য রাখেন কারি লাইফ ম্যাগাজিনের প্রধান সম্পাদক সৈয়দ নাহাস পাশা। তিনি জানান, যুক্তরাজ্যের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে কারী প্রেমীরা এ আয়োজনে উপস্থিত হয়েছেন। নাহাস পাশা বলেন, ২০২৩ সালে কারি লাইফ এর বয়স হবে কুড়ি। কারী লাইফ ম্যাগাজিন আগামীতে আরও ব্যাপকভাবে কারী ইন্ডাস্ট্রির পক্ষে মুখপত্রের কাজ করে যাবে।

সবশেষে ছিলো অতিথিদের জন্য রকমারী ডিশের ডিনার আয়োজন। পাশাপাশি মঞ্চে চলে সাংস্কৃতিক পরিবেশনা।এবারের আয়োজনে হেডলাইন স্পন্সর জাস্ট ইট এর সহযোগিতায় অনুষ্ঠানে আরো সহায়তা করে কোবরা বিয়ার, ইউনিসফট, ওয়ার্ক পারমিট ক্লাউড, ট্রেভেল লিংক, বাংলাদেশের সিটি ব্যাংক ও হালদা ভেলি।

জনমত 

Google News

নিউজ শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর